• Verified Member
  • Lives in Dhaka
  • From Jamalpur
  • Male
  • 01/01/1999
  • Followed by 116 people
Recent Updates
  • 🇹🇷🇹🇷
    জার্মানির গ্রাফেনহোয়ারে ন্যাটোর সপ্তম আর্মি ট্রেনিং কমান্ড অবস্থিত। এটি একই সাথে আমেরিকার বাইরে আমেরিকার সব থেকে বড় ট্রেনিং কমান্ড। সেখানে গতকাল ইউরোপিয়ান বেস্ট স্নাইপার টিম কমপিটিশন শুরু হয়েছে। প্রথম ছবিটি গতকালকের, আর পরের ছবিটি আজকের।

    এখানে সব থেকে ভালো করেছে সুইডেন এবং তুরস্ক, এছাড়া আরও বলার মত দেশ দুটি হল লাটভিয়া এবং স্লোভাকিয়া।
    এখানে অনেকেই হয়তো ইউরোপের মাইটি মাইটি দেশগুলোকে খুঁজবেন, তবে মাঠে নামলেই বুঝা যায় কার মগজের জোর কত,,! স্নাইপার হয়তো সবার কাছেই আছে, অনেকের কাছে হয়তো বিশ্বের সেরা একুরেসির স্নাইপার আছে, তবে এটা সম্পূর্ণই মগজের খেলা।
    সে যাই হোক, আপনাদের ন্যাটোর ইউরোপীয় মহা শক্তিশালী দেশ ফ্রান্স গতকাল অষ্টম হয়েছিল, আমেরিকা হয়েছিল সপ্তম এবং কানাডা ষষ্ঠ।

    এখানে অনেকেই ইউরোপের মহাশক্তিশালী ব্রিটেনের কিংবা জার্মানিকে খুঁজতে পারেন, তবে তারাও ইতালি এবং স্পেনের কাতারে শামিল হয়েছে। গ্রিস?? 😅
    🇹🇷🇹🇷 জার্মানির গ্রাফেনহোয়ারে ন্যাটোর সপ্তম আর্মি ট্রেনিং কমান্ড অবস্থিত। এটি একই সাথে আমেরিকার বাইরে আমেরিকার সব থেকে বড় ট্রেনিং কমান্ড। সেখানে গতকাল ইউরোপিয়ান বেস্ট স্নাইপার টিম কমপিটিশন শুরু হয়েছে। প্রথম ছবিটি গতকালকের, আর পরের ছবিটি আজকের। এখানে সব থেকে ভালো করেছে সুইডেন এবং তুরস্ক, এছাড়া আরও বলার মত দেশ দুটি হল লাটভিয়া এবং স্লোভাকিয়া। এখানে অনেকেই হয়তো ইউরোপের মাইটি মাইটি দেশগুলোকে খুঁজবেন, তবে মাঠে নামলেই বুঝা যায় কার মগজের জোর কত,,! স্নাইপার হয়তো সবার কাছেই আছে, অনেকের কাছে হয়তো বিশ্বের সেরা একুরেসির স্নাইপার আছে, তবে এটা সম্পূর্ণই মগজের খেলা। সে যাই হোক, আপনাদের ন্যাটোর ইউরোপীয় মহা শক্তিশালী দেশ ফ্রান্স গতকাল অষ্টম হয়েছিল, আমেরিকা হয়েছিল সপ্তম এবং কানাডা ষষ্ঠ। এখানে অনেকেই ইউরোপের মহাশক্তিশালী ব্রিটেনের কিংবা জার্মানিকে খুঁজতে পারেন, তবে তারাও ইতালি এবং স্পেনের কাতারে শামিল হয়েছে। গ্রিস?? 😅
    5
    0 Comments 0 Shares
  • Me
    Me
    1
    0 Comments 0 Shares
  • 🌺 এরদোগানের প্রতি রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের সালাম

    চিঠিটা পোস্ট করেছিলেন মুহাম্মাদ এরদোগান সাহেব। ইরাকের প্রখ‍্যাত আলিম ডক্টর আব্দুন নাসির আল জানাহী হাফিঃ এঁর মাধ‍্যমে চিঠিটি তুরস্কে পাঠিয়েছিলেন ইরাকের বাগদাদ থেকে আলহাজ্ব মিজহার আব্দুর রাজ্জাক নামক জনৈক ব‍্যক্তি।

    তিনি বলেন ১৪৪০ হিজরীর রজব মাসে তিনি রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে স্বপ্নে দেখেন। রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তাঁকে বলেনঃ

    "بلغ سلامي الي رجب"
    (রজবের নিকট আমার সালাম পৌঁছে দাও"

    তিনি বলেন

    "من رجب يا رسول الله؟"

    (কোন রজব হে রসূলাল্লাহ?)

    রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেনঃ

    "الرئيس التركي"
    (তুরস্কের রাষ্ট্রপতি)

    অতঃপর রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেনঃ

    "ابغله بأن أمة محمد أمانة علي عنقك و أنك سيف الله الضارب"

    (তাকে জানিয়ে দাও যে উম্মতে মুহাম্মাদি তোমার উপর আমানত আর তুমি হচ্ছ 'সাইফুল্লাহ আজ জ্বরিব" )

    এরপর আরো কয়েকবার তিনি রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে স্বপ্নে দেখেন। অতঃপর চিঠি লিখে المجلس الوطني للمعارضة العراقية এর প্রেসিডেন্ট ডক্টর জানাহী হাফিঃ কে দিয়ে প্রেরণ করেন।

    রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের স্বপ্ন কখনো মিথ্যা হয় না। আর এরদোগানের এত সফলতা তো আল্লাহ পাকের রহমত। ভবিষ্যতেও এই 'আঘাতকারী আল্লাহর তরবারী' শত্রুদের আঘাত করে যাবেন ও ইসলামের বিজয়যাত্রা আল্লাহপাকের রহমতে জারী রাখবেন ইন শা'আল্লাহ।
    #Collected_post
    🌺 এরদোগানের প্রতি রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের সালাম চিঠিটা পোস্ট করেছিলেন মুহাম্মাদ এরদোগান সাহেব। ইরাকের প্রখ‍্যাত আলিম ডক্টর আব্দুন নাসির আল জানাহী হাফিঃ এঁর মাধ‍্যমে চিঠিটি তুরস্কে পাঠিয়েছিলেন ইরাকের বাগদাদ থেকে আলহাজ্ব মিজহার আব্দুর রাজ্জাক নামক জনৈক ব‍্যক্তি। তিনি বলেন ১৪৪০ হিজরীর রজব মাসে তিনি রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে স্বপ্নে দেখেন। রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তাঁকে বলেনঃ "بلغ سلامي الي رجب" (রজবের নিকট আমার সালাম পৌঁছে দাও" তিনি বলেন "من رجب يا رسول الله؟" (কোন রজব হে রসূলাল্লাহ?) রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেনঃ "الرئيس التركي" (তুরস্কের রাষ্ট্রপতি) অতঃপর রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেনঃ "ابغله بأن أمة محمد أمانة علي عنقك و أنك سيف الله الضارب" (তাকে জানিয়ে দাও যে উম্মতে মুহাম্মাদি তোমার উপর আমানত আর তুমি হচ্ছ 'সাইফুল্লাহ আজ জ্বরিব" ) এরপর আরো কয়েকবার তিনি রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে স্বপ্নে দেখেন। অতঃপর চিঠি লিখে المجلس الوطني للمعارضة العراقية এর প্রেসিডেন্ট ডক্টর জানাহী হাফিঃ কে দিয়ে প্রেরণ করেন। রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের স্বপ্ন কখনো মিথ্যা হয় না। আর এরদোগানের এত সফলতা তো আল্লাহ পাকের রহমত। ভবিষ্যতেও এই 'আঘাতকারী আল্লাহর তরবারী' শত্রুদের আঘাত করে যাবেন ও ইসলামের বিজয়যাত্রা আল্লাহপাকের রহমতে জারী রাখবেন ইন শা'আল্লাহ। #Collected_post
    2
    0 Comments 0 Shares
  • কুয়েত। শাবাস। আল্লাহু আকবার।

    বাংলাঃ এটা ফেসিস্টদের জন্য ওয়ার্নিং যারা আমাদের দেশে শ্রমিকবেশে বসবাস করছে। তোমাদের কার্যকলাপ মনিটর করা হচ্ছে। যদি কারো ইসরাইলের সাথে সংস্লিস্টতা খুঁজে পাওয়া যায় তবে তাকে ১০ বছরের জেল এবং ৫০০০ কুয়েতি দিনার জরিমানা করা হবে। যারা জায়ানিস্টদের প্রতি অনুকম্পা দেখাবে তারাই আমাদের ক্রোধের মুখোমুখি হবে।
    কুয়েত। শাবাস। আল্লাহু আকবার। বাংলাঃ এটা ফেসিস্টদের জন্য ওয়ার্নিং যারা আমাদের দেশে শ্রমিকবেশে বসবাস করছে। তোমাদের কার্যকলাপ মনিটর করা হচ্ছে। যদি কারো ইসরাইলের সাথে সংস্লিস্টতা খুঁজে পাওয়া যায় তবে তাকে ১০ বছরের জেল এবং ৫০০০ কুয়েতি দিনার জরিমানা করা হবে। যারা জায়ানিস্টদের প্রতি অনুকম্পা দেখাবে তারাই আমাদের ক্রোধের মুখোমুখি হবে।
    4
    0 Comments 0 Shares
  • ব্রেকিং নিউজঃ:- প্রায় ৬+ লাখ কোটি টাকার বাজেট ঘোষনা আসছে 🤔🤔🤔
    * সামরিক বাজেট ৫+ বিলিয়ন ডলার 😇
    * বিমান বাহিনীর জন্য ৬ হাজার কোটি টাকা অতিরিক্ত বরাদ্দ রাখা হয়েছে MRCA ক্রয়ের প্রাথমিক পেমেন্ট করার জন্য! 😇
    * জুনের ৩ তারিখে বাজেট পেশ হবে , যা জুলাই থেকে ২২ সালের জুনের ৩০ পর্যন্ত ।

    বিঃ দ্রঃ- বাজেটের বিস্তারিত তথ্য আসছে
    ❤️🇧🇩❤️
    ব্রেকিং নিউজঃ:- প্রায় ৬+ লাখ কোটি টাকার বাজেট ঘোষনা আসছে 🤔🤔🤔 * সামরিক বাজেট ৫+ বিলিয়ন ডলার 😇 * বিমান বাহিনীর জন্য ৬ হাজার কোটি টাকা অতিরিক্ত বরাদ্দ রাখা হয়েছে MRCA ক্রয়ের প্রাথমিক পেমেন্ট করার জন্য! 😇 * জুনের ৩ তারিখে বাজেট পেশ হবে , যা জুলাই থেকে ২২ সালের জুনের ৩০ পর্যন্ত । বিঃ দ্রঃ- বাজেটের বিস্তারিত তথ্য আসছে ❤️🇧🇩❤️
    5
    0 Comments 0 Shares
  • আল্লামা মওদুদী {রহঃ} এমন একজন দ্বীনের দায়ী ছিলেন তার বিকল্প আরেকজন কোথায়?
    মাওলাানা তারিক জামিল

    পাকিস্তান জামায়াতের সাবেক আমীর মরহুম কাজি হোসাইন আহমদ সাহেব জীবিত থাকাকালীন সময়ে জামায়াতে ইসলামীর এক সেমিনারে আমাকে দাওয়াত দিয়েছিলেন, তখন আমি গিয়েছিলাম।
    আমি এবং কাজি সাহেব পাশাপাশি বসার পর সেমিনারের আলোচ্য সূচী কাজি সাহেবকে দেওয়ার পর আমাকেও দেওয়া হয়েছে। এমন সময় কাজি সাহেব ঐ পেপার নিয়ে গেলেন এবং বললেন এ বিষয়ে তারিক জামিল সাহেবের ধারণা নেই ।

    তাঁকে লজ্জিত করা হচ্ছে। এবিষয়ে মাওলানা ফজলুর রহমান সাহেব ভালো অভিজ্ঞতা রয়েছে। প্রয়োজন তাঁর সাথে আলাপ করা যেতে পারে। উনাকে এ বিষয়ে না দেওয়া ভালো।

    সেমিনার পরে আমার পরিচিত একজন যুবক মরহুম কাজি সাহেবকে প্রশ্ন করলো জামায়াতে ইসলামীর প্রোগ্রামে তাবলীগ জামায়াতের জামিল সাহেবকে দাওয়াত কেন দিলেন?
    জবাবে কাজি সাহেব বললেন- মাওলানা মওদুদী {রহঃ} বলেছেন এই জন্য আমরা দাওয়াত দিয়েছি।

    আমাদের দাওয়াতের মিশনই হলো আলেমদের সাথে সম্পর্ক বৃদ্ধি করা। এরই অংশ হিসেবে আমার সাথে কতজন আসে সাক্ষাৎ করতে। এরই মধ্যে তাদের সাথে কথা বার্তা আমার অভ্যাস হয়ে গেছে। কোন ঈমানদার মারা গেলে আমি তাকে {রহঃ} বলে সম্বোধন করে থাকি।

    একদিন এক মজলিসে আমি(আমিটা কে?) মাওলানা মওদুদীর {রহঃ} প্রসঙ্গে আলোচনা করতে গিয়ে তাঁর নামের পরে {রহঃ} বলেছি। তখন আমাকে এক মৌলভী একটু বিশ্রীভাবে প্রশ্ন করেন, আমি কেন মাওলানা মওদুদীকে! {রহঃ} কেন বলি,,,,?
    আমি তাদের উদ্দেশ্যে বলবো, যে ঈমানের উপর ইন্তেকাল করেছেন তাঁকে {রহঃ} না বলে কি বলবো?
    আমি কি কাফিরকে {রহঃ} বলবো?
    ইসলামের দাওয়াতই হলো দ্বীনের অনুসারীরা একে অপরের ঘনিষ্ঠ সাথী হতে হবে। সম্পর্কে ফাটল ধরানোর জন্য এমন আচরণ বন্ধ করা উচিত।
    তখন আমি ঐ আলেমকে বললাম- আপনার লজ্জা শরম থাকা চাই, আপনি একজন আলেম? মানুষ হতে পারেন নি? ভালো মানুষ হওয়া চেষ্টা করুণ। যারা মাওলানা মওদুদীর {রহঃ} বিরোধিতা করে ওরা মানুষ হতে পারেনি!
    মাওলানা মওদুদী {রহঃ} অনেক উচুঁ মানের একজন আলেমেদ্বীন ছিলেন। তিনি আলাদা কোন মাযহাব বা ফেরকা তৈরি করেন নি। মাওলানা ইসলামের অনেক বড় খেদমত করছেন। আলাদা কোন ফেকাহ তৈরি করেননি! আলাদা কোন ইজদেহাদ করেননি! তিনি হানাফি মাযহাবের খাঁটি অনুসারী এবং বড় হানাফি আলেম ছিলেন।
    সারা বিশ্বের কাছে ইসলামকে অত্যন্ত চমৎকার এবং যুগোপযোগী হিসেবে উপস্থাপনা করেছেন। ইসলামের আলোকে বিভিন্ন মতবাদ গুলোর বিশেষ করে সমাজতন্ত্র ও পুঁজিবাদের ত্রুটি ও বর্জনীয় দিকগুলো তুলে ধরতে পেরেছেন তাঁর বিকল্প আর কারো পক্ষে সম্ভব হয়নি! জাল হাদিসের বিরুদ্ধে কঠোর সমালোচনা করেছেন এবং জবাব দিয়েছেন। মাওলানা আমীন ইসলাহী সাহেবের উস্তাদ মাওলানা হামীদুদ্দীন এর হাদিসের বিরোধিতা করাতে কঠোর সমালোচনা করেছেন। এইসব বিভ্রান্তির কঠোর জবাব দিয়েছেন।

    মাওলানা আশরাফ আলী থানবীর {রহঃ} বইগুলো পড়ুন, দেখবেন যুবকদের আকর্ষণ করার মতো কোন খোরাক নেই? আশরাফ আলী থানভী রাহমাতুল্লাহির লেখা বইগুলো উচুঁ মানের এবং মাদ্রাসায় পড়ুয়া ছাত্রদের বুঝতে অনেক কষ্ট হয়। সেখানে আধুনিক শিক্ষিত যুবসমাজের পক্ষে বুঝা কি করে সম্ভব?

    কিন্তু মাওলানা মওদুদী {রহঃ} অত্যন্ত সুন্দর এবং যুবসমাজের পক্ষে বুঝার মতো বইগুলো লিখে তরুণ প্রজন্মের কাছে ইসলামকে অত্যন্ত সাবলীলভাবে এবং গ্রহণযোগ্য ভাবে উপস্থাপনা করার কারণে এ উপমহাদেশে মুসলমানদের জন্য এক নিয়ামত আলহামদুলিল্লাহ। আল্লামা মওদুদী {রহঃ} এমন একজন দ্বীনের দায়ী ছিলেন তার বিকল্প আরেকজন কোথায়?
    আল্লামা মওদুদী {রহঃ} এমন একজন দ্বীনের দায়ী ছিলেন তার বিকল্প আরেকজন কোথায়? মাওলাানা তারিক জামিল পাকিস্তান জামায়াতের সাবেক আমীর মরহুম কাজি হোসাইন আহমদ সাহেব জীবিত থাকাকালীন সময়ে জামায়াতে ইসলামীর এক সেমিনারে আমাকে দাওয়াত দিয়েছিলেন, তখন আমি গিয়েছিলাম। আমি এবং কাজি সাহেব পাশাপাশি বসার পর সেমিনারের আলোচ্য সূচী কাজি সাহেবকে দেওয়ার পর আমাকেও দেওয়া হয়েছে। এমন সময় কাজি সাহেব ঐ পেপার নিয়ে গেলেন এবং বললেন এ বিষয়ে তারিক জামিল সাহেবের ধারণা নেই । তাঁকে লজ্জিত করা হচ্ছে। এবিষয়ে মাওলানা ফজলুর রহমান সাহেব ভালো অভিজ্ঞতা রয়েছে। প্রয়োজন তাঁর সাথে আলাপ করা যেতে পারে। উনাকে এ বিষয়ে না দেওয়া ভালো। সেমিনার পরে আমার পরিচিত একজন যুবক মরহুম কাজি সাহেবকে প্রশ্ন করলো জামায়াতে ইসলামীর প্রোগ্রামে তাবলীগ জামায়াতের জামিল সাহেবকে দাওয়াত কেন দিলেন? জবাবে কাজি সাহেব বললেন- মাওলানা মওদুদী {রহঃ} বলেছেন এই জন্য আমরা দাওয়াত দিয়েছি। আমাদের দাওয়াতের মিশনই হলো আলেমদের সাথে সম্পর্ক বৃদ্ধি করা। এরই অংশ হিসেবে আমার সাথে কতজন আসে সাক্ষাৎ করতে। এরই মধ্যে তাদের সাথে কথা বার্তা আমার অভ্যাস হয়ে গেছে। কোন ঈমানদার মারা গেলে আমি তাকে {রহঃ} বলে সম্বোধন করে থাকি। একদিন এক মজলিসে আমি(আমিটা কে?) মাওলানা মওদুদীর {রহঃ} প্রসঙ্গে আলোচনা করতে গিয়ে তাঁর নামের পরে {রহঃ} বলেছি। তখন আমাকে এক মৌলভী একটু বিশ্রীভাবে প্রশ্ন করেন, আমি কেন মাওলানা মওদুদীকে! {রহঃ} কেন বলি,,,,? আমি তাদের উদ্দেশ্যে বলবো, যে ঈমানের উপর ইন্তেকাল করেছেন তাঁকে {রহঃ} না বলে কি বলবো? আমি কি কাফিরকে {রহঃ} বলবো? ইসলামের দাওয়াতই হলো দ্বীনের অনুসারীরা একে অপরের ঘনিষ্ঠ সাথী হতে হবে। সম্পর্কে ফাটল ধরানোর জন্য এমন আচরণ বন্ধ করা উচিত। তখন আমি ঐ আলেমকে বললাম- আপনার লজ্জা শরম থাকা চাই, আপনি একজন আলেম? মানুষ হতে পারেন নি? ভালো মানুষ হওয়া চেষ্টা করুণ। যারা মাওলানা মওদুদীর {রহঃ} বিরোধিতা করে ওরা মানুষ হতে পারেনি! মাওলানা মওদুদী {রহঃ} অনেক উচুঁ মানের একজন আলেমেদ্বীন ছিলেন। তিনি আলাদা কোন মাযহাব বা ফেরকা তৈরি করেন নি। মাওলানা ইসলামের অনেক বড় খেদমত করছেন। আলাদা কোন ফেকাহ তৈরি করেননি! আলাদা কোন ইজদেহাদ করেননি! তিনি হানাফি মাযহাবের খাঁটি অনুসারী এবং বড় হানাফি আলেম ছিলেন। সারা বিশ্বের কাছে ইসলামকে অত্যন্ত চমৎকার এবং যুগোপযোগী হিসেবে উপস্থাপনা করেছেন। ইসলামের আলোকে বিভিন্ন মতবাদ গুলোর বিশেষ করে সমাজতন্ত্র ও পুঁজিবাদের ত্রুটি ও বর্জনীয় দিকগুলো তুলে ধরতে পেরেছেন তাঁর বিকল্প আর কারো পক্ষে সম্ভব হয়নি! জাল হাদিসের বিরুদ্ধে কঠোর সমালোচনা করেছেন এবং জবাব দিয়েছেন। মাওলানা আমীন ইসলাহী সাহেবের উস্তাদ মাওলানা হামীদুদ্দীন এর হাদিসের বিরোধিতা করাতে কঠোর সমালোচনা করেছেন। এইসব বিভ্রান্তির কঠোর জবাব দিয়েছেন। মাওলানা আশরাফ আলী থানবীর {রহঃ} বইগুলো পড়ুন, দেখবেন যুবকদের আকর্ষণ করার মতো কোন খোরাক নেই? আশরাফ আলী থানভী রাহমাতুল্লাহির লেখা বইগুলো উচুঁ মানের এবং মাদ্রাসায় পড়ুয়া ছাত্রদের বুঝতে অনেক কষ্ট হয়। সেখানে আধুনিক শিক্ষিত যুবসমাজের পক্ষে বুঝা কি করে সম্ভব? কিন্তু মাওলানা মওদুদী {রহঃ} অত্যন্ত সুন্দর এবং যুবসমাজের পক্ষে বুঝার মতো বইগুলো লিখে তরুণ প্রজন্মের কাছে ইসলামকে অত্যন্ত সাবলীলভাবে এবং গ্রহণযোগ্য ভাবে উপস্থাপনা করার কারণে এ উপমহাদেশে মুসলমানদের জন্য এক নিয়ামত আলহামদুলিল্লাহ। আল্লামা মওদুদী {রহঃ} এমন একজন দ্বীনের দায়ী ছিলেন তার বিকল্প আরেকজন কোথায়?
    5
    0 Comments 0 Shares
  • বাগদত্তা স্ত্রী অপেক্ষা করল ১৮ বছর! অবিশ্বাস্য হলেও এটাই সত্য। নাটক-সিনেমা বা রূপকথায় নয়, বাস্তবে। ইসমাইল নামক যুবকের সাথে বিয়ের কথা চূড়ান্ত হয় ইকরামা নামের যুবতীর৷ বিধিবাম। বিয়ের আগেই যুবক জেলে যায় ফিলিস্তিনি বীরযোদ্ধা হিসেবে।

    শুরু হয় অপেক্ষার পালা। আরবিতে প্রবাদ আছে, "আল ইনতিজারু আশাদ্দু মিনাল কাতল--অপেক্ষা করা মৃত্যুর চেয়ে কষ্টকর"

    যুবতী অপেক্ষা করতে করতে মধ্যবয়েসী নারী হয়ে যায়। সেসময়ে দুজনের মিলন হলে হয়তো আজকে তাদের মেয়ের বিয়ে দিতে পারত!

    প্রতিটা দিন, প্রতিটি রাত কেটেছে তার স্মরণে। পরিবারের লোকজন, বান্ধবী, আত্মীয়স্বজন সবাই বলেছে আরও ভালো পাত্র পাওয়া গেছে, বিয়ে দিয়ে দিচ্ছি। আর কত এভাবে?!

    কিন্তু মেয়েটির ভালোবাসার গভীরতা ও বিশ্বাসের প্রগাঢ়তা ছিল হিমালয়ের থেকে উঁচু। সবর ও ধৈর্যের সব পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে গেলেন। দীর্ঘ ১৮ বছর পর স্বামীকে ফুল দিয়ে বরণ করে নিচ্ছেন। ইসমাইলের দাড়িগুলোও সাদা হয়ে গেছে! ইসরাইলের কারাগার থেকে মুক্তি পাওয়া ইসমাইল আবু আইশাহ এবং তার বাগদত্তা ইকরামা আইশাহ'র গল্গ যেন সিনেমার গল্পকেও হার মানায়।
    বাগদত্তা স্ত্রী অপেক্ষা করল ১৮ বছর! অবিশ্বাস্য হলেও এটাই সত্য। নাটক-সিনেমা বা রূপকথায় নয়, বাস্তবে। ইসমাইল নামক যুবকের সাথে বিয়ের কথা চূড়ান্ত হয় ইকরামা নামের যুবতীর৷ বিধিবাম। বিয়ের আগেই যুবক জেলে যায় ফিলিস্তিনি বীরযোদ্ধা হিসেবে। শুরু হয় অপেক্ষার পালা। আরবিতে প্রবাদ আছে, "আল ইনতিজারু আশাদ্দু মিনাল কাতল--অপেক্ষা করা মৃত্যুর চেয়ে কষ্টকর" যুবতী অপেক্ষা করতে করতে মধ্যবয়েসী নারী হয়ে যায়। সেসময়ে দুজনের মিলন হলে হয়তো আজকে তাদের মেয়ের বিয়ে দিতে পারত! প্রতিটা দিন, প্রতিটি রাত কেটেছে তার স্মরণে। পরিবারের লোকজন, বান্ধবী, আত্মীয়স্বজন সবাই বলেছে আরও ভালো পাত্র পাওয়া গেছে, বিয়ে দিয়ে দিচ্ছি। আর কত এভাবে?! কিন্তু মেয়েটির ভালোবাসার গভীরতা ও বিশ্বাসের প্রগাঢ়তা ছিল হিমালয়ের থেকে উঁচু। সবর ও ধৈর্যের সব পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে গেলেন। দীর্ঘ ১৮ বছর পর স্বামীকে ফুল দিয়ে বরণ করে নিচ্ছেন। ইসমাইলের দাড়িগুলোও সাদা হয়ে গেছে! ইসরাইলের কারাগার থেকে মুক্তি পাওয়া ইসমাইল আবু আইশাহ এবং তার বাগদত্তা ইকরামা আইশাহ'র গল্গ যেন সিনেমার গল্পকেও হার মানায়।
    7
    0 Comments 0 Shares
  • বনের ভেতর গাধা আর বাঘের তর্ক চলছে।
    গাধা বলল, " ঘাসের রঙ নীল"।
    বাঘ বলল, "না, ঘাসের রঙ সবুজ"।
    শেষে বিতর্কের নিষ্পত্তি করতে তারা দুজনে গেল অরণ্যের রাজা, সিংহের দরবারে।

    গিয়েই গাধা চিৎকার করতে শুরু করে দিল। বাঘকে কথা বলার সুযোগই দিল না। শেষে গাধা বলল, "মহারাজ, ঘাসের রঙ নীল। তাই নয় কি"? সিংহ বললেন, "হ্যাঁ, ঘাসের রঙ অবশ্যই নীল"।

    গাধা বলল, "এই সত্যটা বাঘ মানতে নারাজ মহারাজ। ওকে উচিত শাস্তি দেয়া হোক"। রাজা ঘোষণা করলেন, "বাঘকে এক বৎসরের কারাদণ্ড দেয়া হল"।
    গাধা আনন্দে আত্মহারা হয়ে সারা অরণ্য জুড়ে বলে বেড়াতে লাগল যে তার জন্যই বাঘের কারাদণ্ড হয়েছে"।

    কারাগার থেকে ছাড়া পেয়ে বাঘ সিংহের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করল, "মহারাজ, ঘাসের রঙ তো সবুজ, তাই নয় কি"? রাজা বললেন, "হ্যাঁ, ঘাসের রঙ সবুজ"। বাঘ জানতে চাইল, "তবে আমার কারাদণ্ডের আদেশ দিলেন কেন"?

    রাজা বললেন, ঘাসের রঙ নীল না সবুজ তা বলার জন্য তোমার শাস্তি হয়নি। তোমার শাস্তি হয়েছে গাধার সঙ্গে তর্ক করে আমার মহামূল্য সময় নষ্ট করার জন্য। তোমার মতো বুদ্ধিমান প্রাণী যদি এমন কাজ করে তবে বাকিরা কি শিখবে।
    বনের ভেতর গাধা আর বাঘের তর্ক চলছে। গাধা বলল, " ঘাসের রঙ নীল"। বাঘ বলল, "না, ঘাসের রঙ সবুজ"। শেষে বিতর্কের নিষ্পত্তি করতে তারা দুজনে গেল অরণ্যের রাজা, সিংহের দরবারে। গিয়েই গাধা চিৎকার করতে শুরু করে দিল। বাঘকে কথা বলার সুযোগই দিল না। শেষে গাধা বলল, "মহারাজ, ঘাসের রঙ নীল। তাই নয় কি"? সিংহ বললেন, "হ্যাঁ, ঘাসের রঙ অবশ্যই নীল"। গাধা বলল, "এই সত্যটা বাঘ মানতে নারাজ মহারাজ। ওকে উচিত শাস্তি দেয়া হোক"। রাজা ঘোষণা করলেন, "বাঘকে এক বৎসরের কারাদণ্ড দেয়া হল"। গাধা আনন্দে আত্মহারা হয়ে সারা অরণ্য জুড়ে বলে বেড়াতে লাগল যে তার জন্যই বাঘের কারাদণ্ড হয়েছে"। কারাগার থেকে ছাড়া পেয়ে বাঘ সিংহের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করল, "মহারাজ, ঘাসের রঙ তো সবুজ, তাই নয় কি"? রাজা বললেন, "হ্যাঁ, ঘাসের রঙ সবুজ"। বাঘ জানতে চাইল, "তবে আমার কারাদণ্ডের আদেশ দিলেন কেন"? রাজা বললেন, ঘাসের রঙ নীল না সবুজ তা বলার জন্য তোমার শাস্তি হয়নি। তোমার শাস্তি হয়েছে গাধার সঙ্গে তর্ক করে আমার মহামূল্য সময় নষ্ট করার জন্য। তোমার মতো বুদ্ধিমান প্রাণী যদি এমন কাজ করে তবে বাকিরা কি শিখবে।
    6
    0 Comments 0 Shares
  • শেষ হাসিটা মমতার মুখেই আসলো

    সকাল থেকেই যে ফলাফল গননার রিপোর্ট বের হচ্ছিল তাতে একটা বিষয় স্পষ্ট হয়ে আসছিল তৃণমূল দল হিসেবে রাজ্যে সংখ্যা গরিষ্ঠতা পেলেও ব্যক্তি মমতা হেরে যাচ্ছেন তার এক সময়ের ডান হাত শিষ্য শুভেন্দু অধিকারীর কাছে।

    নির্বাচনের আগে দলত্যাগ করে শুভেন্দু অনেক নেতাকর্মী নিয়ে যোগদেন বিজেপিতে। প্রার্থী হন ঐতিহাসিক নন্দীগ্রামে। শুরু থেকেই গুরু শিষ্যের মধ্যে যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে সেটা আঁচ করছিলেন সবাই। হলোও তাই।

    আজ সকাল থেকে নন্দীগ্রামের বুথ ফেরত রিপোর্টগুলো গননার সময়ই দুজনেই ছিলেন কাছাকাছি। শুরু থেকে বিকাল পর্যন্ত শুভেন্দু অধিকারী গায়ে ঘেঁষে এগিয়ে থাকলেও শেষ বেলার গননায় মাত্র ১২০১ টি ভোট বেশি পেয়ে শেষ হাঁসি হাসেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়!!
    শেষ হাসিটা মমতার মুখেই আসলো সকাল থেকেই যে ফলাফল গননার রিপোর্ট বের হচ্ছিল তাতে একটা বিষয় স্পষ্ট হয়ে আসছিল তৃণমূল দল হিসেবে রাজ্যে সংখ্যা গরিষ্ঠতা পেলেও ব্যক্তি মমতা হেরে যাচ্ছেন তার এক সময়ের ডান হাত শিষ্য শুভেন্দু অধিকারীর কাছে। নির্বাচনের আগে দলত্যাগ করে শুভেন্দু অনেক নেতাকর্মী নিয়ে যোগদেন বিজেপিতে। প্রার্থী হন ঐতিহাসিক নন্দীগ্রামে। শুরু থেকেই গুরু শিষ্যের মধ্যে যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে সেটা আঁচ করছিলেন সবাই। হলোও তাই। আজ সকাল থেকে নন্দীগ্রামের বুথ ফেরত রিপোর্টগুলো গননার সময়ই দুজনেই ছিলেন কাছাকাছি। শুরু থেকে বিকাল পর্যন্ত শুভেন্দু অধিকারী গায়ে ঘেঁষে এগিয়ে থাকলেও শেষ বেলার গননায় মাত্র ১২০১ টি ভোট বেশি পেয়ে শেষ হাঁসি হাসেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়!!
    2
    0 Comments 0 Shares
  • -আমরা ৯০ কোটি টাকা খরচ করে মানব_পতাকা বানাই।
    -তিন হাজার কোটি টাকা দিয়ে স্যাটেলাইট বানাই।
    -বারো'শো কোটি টাকায় রোবট সুফিয়া ভাড়া করি।
    -চোদ্দ'শো কোটি টাকা খরচ করে বিমানবন্দরের নাম পাল্টাই।
    -চার'শো কোটি টাকার বাজী কিনে মরা মানুষের জন্মদিন পালন করি।
    -আমরা ৪ রোমের একটা আধা পাকা ঘরে ৮ থেকে ১২ টা ভেন্টিলেটর সেট করি।
    😭😭😭😭😭😭
    -অথচ ১৬ কোটি মানুষের জন্য নেই আইসিইউ
    -নেই এম্বুলেন্স।
    -নেই অক্সিজেন সিলেন্ডার। 😥
    -আর বিনা চিকিৎসায় মানুষ মরে! 😥💔
    😡😡😡😡😡😡
    -তবুও আমরা বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল😡
    -তবু আমরা সিঙ্গাপুর কে ক্রস করে লেস এঞ্জেলস, লেস ভেগাস এর নাগাল পেলাম বলে😡
    -বিশ্বের নাম্বার ওয়ান অর্থমন্ত্রী টা আমাদেরই
    -আমরা জনপ্রিয়তার দিক থেকে জাস্টিন ট্রুডোর ঠিক পরের সিরিয়ালেই😡
    -আমরা ৯০ কোটি টাকা খরচ করে মানব_পতাকা বানাই। -তিন হাজার কোটি টাকা দিয়ে স্যাটেলাইট বানাই। -বারো'শো কোটি টাকায় রোবট সুফিয়া ভাড়া করি। -চোদ্দ'শো কোটি টাকা খরচ করে বিমানবন্দরের নাম পাল্টাই। -চার'শো কোটি টাকার বাজী কিনে মরা মানুষের জন্মদিন পালন করি। -আমরা ৪ রোমের একটা আধা পাকা ঘরে ৮ থেকে ১২ টা ভেন্টিলেটর সেট করি। 😭😭😭😭😭😭 -অথচ ১৬ কোটি মানুষের জন্য নেই আইসিইউ -নেই এম্বুলেন্স। -নেই অক্সিজেন সিলেন্ডার। 😥 -আর বিনা চিকিৎসায় মানুষ মরে! 😥💔 😡😡😡😡😡😡 -তবুও আমরা বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল😡 -তবু আমরা সিঙ্গাপুর কে ক্রস করে লেস এঞ্জেলস, লেস ভেগাস এর নাগাল পেলাম বলে😡 -বিশ্বের নাম্বার ওয়ান অর্থমন্ত্রী টা আমাদেরই -আমরা জনপ্রিয়তার দিক থেকে জাস্টিন ট্রুডোর ঠিক পরের সিরিয়ালেই😡
    6
    0 Comments 0 Shares
More Stories