🐍 the depopulation agenda 1974 secrets 🐍
🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍
.
🐍বংশীয় ধারাবাহিকতা বন্ধ করার ষ[ড়]যন্ত্র🐍
----------------------------------------------------------------
♦ দিন দিন বৃদ্ধি পাওয়া মুসলিম জনসংখ্যা অবশ্যই দাজ্জালের অনুসারীদের জন্য টেনশনের কারণ। বহুদিন ধরেই ইহুদী বৈজ্ঞানিক, আন্তর্জাতিক নেতৃবৃন্দ, মাল্টি ন্যাশনাল কোম্পানীসমূহ, ওয়ার্ল্ড ব্যাংক, পেন্টাগন অধিপতি এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার শয়তান ডাক্তারগণ মুসলিম জনসংখ্যা হ্রাসের উদ্দেশ্যে বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে তৎপর রয়েছে। এতদুদ্দেশ্য বাস্তবায়নে ১০ ডিসেম্বর ১৯৭৪ সালে মিসরে সাবেক মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হেনরি কিসিঞ্জারের সভাপতিত্বে "ন্যাশনাল সিকিউরিটি ষ্টাডি মেমােরিন্ডম-২০০" শিরােনামে দুইশত পৃষ্ঠার একটি ক্লাসিফাইড রিপাের্ট পেশ করা হয়। যা বিশ্বজুড়ে ক্রমবর্ধমান জনগােষ্ঠী কন্ট্রোলিং বিষয়ে সন্নিবেশিত ছিল। রিপাের্টটির মূল আলােচনা ছিল- "বিশ্বজুড়ে বিশেষত পূর্ব-বিশ্বের দেশগুলিতে ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যা আমেরিকার ভবিষ্যৎ নিরাপত্তার জন্য হুমকি হয়ে দাড়াতে পারে। তাই এ হুমকির বিষয়ে জনসচেতনতা সৃষ্টি করা দরকার। পাশাপাশি এতদাঞ্চলের বাড়তে যাওয়া জনগােষ্ঠীকে ক্রমান্বয়ে কন্ট্রোল করা দরকার। যুদ্ধ বা রাসায়নিক জীবাণু ব্যবহার করে এদের কন্ট্রোল করা যেতে পারে।" প্রােগ্রামটিকে (NSSM-200)নামে চিহ্নিত করা হয়।
.
♦ পরবর্তীতে প্রােগ্রামটিকে এমনভাবে বাস্তবে রূপ দেয়া হয় যে, মুসলিম বিশ্বের কোন ঘর এবং কোন সদস্যই এর কুপ্রতিক্রিয়া থেকে নিরাপদ থাকতে পারেনি। প্রােগ্রামটি বাস্তবায়নে উল্লেখ্যযােগ্য ভুমিকা রেখেছে ইহুদী মাল্টি ন্যাশনাল কোম্পানীসমূহ। তারা খাদ্য ও পানীয় বস্তুগুলােতে এমন সব ক্যামিকেল মিশ্রণ করে দিয়েছে, যেগুলি জনগােষ্ঠী কন্ট্রোলের কাজকে আরাে সহজ করে দিয়েছে। যেমন- আয়ােডিনযুক্ত লবণ, বেনাস্পাতী ঘি, কোকিং অয়েল ইত্যাদি; যা মানুষের জন্য এমন ধ্বংসাত্মক পরিনামের কারণ যে, এগুলির বর্তমানে দ্বিতীয় কোন পদক্ষেপ নেয়ার দরকারই পড়বেনা। কিন্তু দাজ্জালের অনুসারীরা শুধু এতটুকু করেই ক্ষান্ত হয়নি, বরং শিশুদের জন্য ডিব্বা/প্যাকেটে থাকা দুধ থেকে শুরু করে পেপসি, কোকাকোলা এবং অন্যান্য সকল পানীয় বস্তুর মাধ্যমে সুস্থ্য সবল ব্যক্তিদেরকেও হাসপাতালের বিছানার সাথে সেট করে দিয়েছে। বাচ্চাদের চকোলেট, আইসক্রিম- এরকম প্রায় ছয় হাজার বিষাক্ত ক্যামিক্যাল মিশ্রিত খাদ্য ও পানীয় বাজারে বিক্রি হচ্ছে। যার ফলাফল আপনি মুসলিম দেশগুলাের হাসপাতালের দিকে তাকালেই দেখতে পাবেন।
Source link:
https://banglabookfree007.blogspot.com/2021/07/blog-post.html
🐍 the depopulation agenda 1974 secrets 🐍 🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍🐍 . 🐍বংশীয় ধারাবাহিকতা বন্ধ করার ষ[ড়]যন্ত্র🐍 ---------------------------------------------------------------- ♦ দিন দিন বৃদ্ধি পাওয়া মুসলিম জনসংখ্যা অবশ্যই দাজ্জালের অনুসারীদের জন্য টেনশনের কারণ। বহুদিন ধরেই ইহুদী বৈজ্ঞানিক, আন্তর্জাতিক নেতৃবৃন্দ, মাল্টি ন্যাশনাল কোম্পানীসমূহ, ওয়ার্ল্ড ব্যাংক, পেন্টাগন অধিপতি এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার শয়তান ডাক্তারগণ মুসলিম জনসংখ্যা হ্রাসের উদ্দেশ্যে বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে তৎপর রয়েছে। এতদুদ্দেশ্য বাস্তবায়নে ১০ ডিসেম্বর ১৯৭৪ সালে মিসরে সাবেক মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হেনরি কিসিঞ্জারের সভাপতিত্বে "ন্যাশনাল সিকিউরিটি ষ্টাডি মেমােরিন্ডম-২০০" শিরােনামে দুইশত পৃষ্ঠার একটি ক্লাসিফাইড রিপাের্ট পেশ করা হয়। যা বিশ্বজুড়ে ক্রমবর্ধমান জনগােষ্ঠী কন্ট্রোলিং বিষয়ে সন্নিবেশিত ছিল। রিপাের্টটির মূল আলােচনা ছিল- "বিশ্বজুড়ে বিশেষত পূর্ব-বিশ্বের দেশগুলিতে ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যা আমেরিকার ভবিষ্যৎ নিরাপত্তার জন্য হুমকি হয়ে দাড়াতে পারে। তাই এ হুমকির বিষয়ে জনসচেতনতা সৃষ্টি করা দরকার। পাশাপাশি এতদাঞ্চলের বাড়তে যাওয়া জনগােষ্ঠীকে ক্রমান্বয়ে কন্ট্রোল করা দরকার। যুদ্ধ বা রাসায়নিক জীবাণু ব্যবহার করে এদের কন্ট্রোল করা যেতে পারে।" প্রােগ্রামটিকে (NSSM-200)নামে চিহ্নিত করা হয়। . ♦ পরবর্তীতে প্রােগ্রামটিকে এমনভাবে বাস্তবে রূপ দেয়া হয় যে, মুসলিম বিশ্বের কোন ঘর এবং কোন সদস্যই এর কুপ্রতিক্রিয়া থেকে নিরাপদ থাকতে পারেনি। প্রােগ্রামটি বাস্তবায়নে উল্লেখ্যযােগ্য ভুমিকা রেখেছে ইহুদী মাল্টি ন্যাশনাল কোম্পানীসমূহ। তারা খাদ্য ও পানীয় বস্তুগুলােতে এমন সব ক্যামিকেল মিশ্রণ করে দিয়েছে, যেগুলি জনগােষ্ঠী কন্ট্রোলের কাজকে আরাে সহজ করে দিয়েছে। যেমন- আয়ােডিনযুক্ত লবণ, বেনাস্পাতী ঘি, কোকিং অয়েল ইত্যাদি; যা মানুষের জন্য এমন ধ্বংসাত্মক পরিনামের কারণ যে, এগুলির বর্তমানে দ্বিতীয় কোন পদক্ষেপ নেয়ার দরকারই পড়বেনা। কিন্তু দাজ্জালের অনুসারীরা শুধু এতটুকু করেই ক্ষান্ত হয়নি, বরং শিশুদের জন্য ডিব্বা/প্যাকেটে থাকা দুধ থেকে শুরু করে পেপসি, কোকাকোলা এবং অন্যান্য সকল পানীয় বস্তুর মাধ্যমে সুস্থ্য সবল ব্যক্তিদেরকেও হাসপাতালের বিছানার সাথে সেট করে দিয়েছে। বাচ্চাদের চকোলেট, আইসক্রিম- এরকম প্রায় ছয় হাজার বিষাক্ত ক্যামিক্যাল মিশ্রিত খাদ্য ও পানীয় বাজারে বিক্রি হচ্ছে। যার ফলাফল আপনি মুসলিম দেশগুলাের হাসপাতালের দিকে তাকালেই দেখতে পাবেন। Source link: https://banglabookfree007.blogspot.com/2021/07/blog-post.html
0 Comments 0 Shares
Post