Web Analytics

মুজিববর্ষের অনুষ্ঠানে মোদিকে নয় এরদোগানকে দেখতে চাই”


সম্প্রতি ভারতের দিল্লিতে মুসলিমদের উপর ভয়াবহ সন্ত্রাসী আক্রমণ ও মসজিদ ভাঙ্গাকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে উঠে??

.

সম্প্রতি ভারতের দিল্লিতে মুসলিমদের উপর ভয়াবহ সন্ত্রাসী আক্রমণ ও মসজিদ ভাঙ্গাকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে সোস্যাল মিডিয়া সেখানে দিল্লির দাঙ্গা নিয়ে বাংলাদেশের মানুষ ভারতের প্রধামন্ত্রী নরেদ্র মোদীকে দায়ী করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম গুলোতে সমালোচনার ঝড় তুলেছে।

সোস্যাল মিডিয়ায় দেখা গেছে গত ২ দিন থেকে নরেদ্র মোদীকে মুজিববর্ষে প্রতিহত করার ঘোষণা দিয়ে অনেকে ফেসবুক ষ্ট্যাটাসের মাধ্যমে প্রতিবাদ গড়ে তুলছে।

সাইফ হাসান নামের এক ব্যাক্তি লেখছেন এরদোগান মুসলিম বিশ্বের অহংকার বিশ্বের যে কোন মুসলমান নির্যাতনের ইস্যুৎতে এরদোগান কে তৎপর হতে দেখা যায় মুসলিম বিশ্বেকে জোটবন্ধ করার জন্য এরদোগান ঐক্যের ডাক দিয়েছিলেন এরদোগানের অবিস্মরনীয় অবদানের কথা বলে শেষ করা যাবে না তার উল্লেখ যোগ্য কিছু তুলে ধরা হল:

মুসলিম বিশ্ব ঐক্যের ডাকঃ তুরস্কের ইস্তাম্বুল শহরে দু’দিনব্যাপী (ওআইসি) শীর্ষ সম্মেলনে মুসলিম বিশ্বের সকল ভেদাভেদ ভুলে ঐক্যের ডাক দেন এরদোগান। এ সম্মেলনের মুসলিম দেশগুলোর মধ্যকার বিদ্যমান তিক্ততা দূর করে সুসম্পর্কের মাধ্যমে মুসলিম বিশ্বের মর্যাদা পুনরুদ্ধারের আহ্বান জানান তিনি। তার বক্তব্য ছিল- আমাদের ধর্ম ইসলাম, শিয়া বা সুন্নি নয়।

রোহিঙ্গা ইস্যুঃ মায়ানমারের নির্যাতিত মুসলিম জনগোষ্ঠীর পাশে সর্বদাই সুদৃঢ় অবস্থান ছিল এরদোগানের। মায়ানমারে রোহিঙ্গাদের উপর মানবতাবিরোধী জঘন্য নির্যাতনের কঠোর সমালেচনা করেন তিনি। এছাড়া আন্তর্জাতিক মহলকে রোহিঙ্গাদের সহযোগিতার জন্য আহবান জানান তিনি।

কাশ্মির সমস্যাঃ পাকিস্তান সফরে এসে কাশ্মির নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেন এরদোগান। ভারত-পাকিস্তানকে দ্রুত বিষয়টি সমাধান করতেও পরামর্শ দেন তিনি।

তাই আমি মনে করি মুজিববর্ষে নরেদ্র মোদিকে নয় এরদোগান কে দেখতে চাই…

গতকাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিপি নুর তার এক বক্তব্য বলেছেন মোদি বাংলাদেশে আসলে রক্ত গঙ্গা বয়ে যাবে। যে কোন ভাবে তাকে প্রতিহত করা হবে তার বক্তব্যকে বাংলাদেশের ছাত্র সমাজ ও সচেতন নাগরিকদের কে সমর্থন করতে দেখা গেছে

এছাড়াও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক ড. আসিফ নজরুল বলছেন মোদিকে আমন্ত্রণ বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার প্রতি অবমাননার সামিল

পাশাপাশি সোস্যাল মিডিয়ায় অনেকে ফেসবুক পোষ্টের মাধ্যমে নিজেদের প্রতিক্রিয়া তুলেধরে বলছেন মুজিববর্ষের অনুষ্ঠানে মোদিকে দেখতে চাই না, এর যায়গায় আমরা তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোগানকে দেখতে চাই।

ফেসবুকে একটি গ্রুপে মুজিববর্ষের অনুষ্ঠানে মোদিকে নয় এরদোগানকে দেখতে চাই” শিরোনামে একটি পোষ্ট ভাইরাল হতে দেখা গেছে সেখানে মাত্র ৩২মিনিটে ১১ হাজার লাইক পড়েছে এবং গ্রুপের সদস্যেরা হ্যা, এবং একমত লিখে কমেন্ট করে তাদের সমর্থন জানাচ্ছে এবং সে সাথে প্রচুর শেয়ার করতে দেখা গেছে।

বিঃদ্রঃ আলাদিন কি? আলাদিন হলো ফেসবুকের বিকল্প হালাল সোস্যাল মিডিয়া মুসলিমদে তৈরি

সত্য ও ন্যায়ের পক্ষে নিউজ পেতে আলাদিনের সংঙ্গে থাকুন। আলাদিন.সোস্যালে আইডি খুলতে লিংকে ক্লিক করুন: https://www.aladdin.social/register?ref=mdasadullah88